সব
facebook netrokonajournal.com
আজ হায়দার জাহান চৌধুরীর ৭০তম জন্মদিন | নেত্রকোণা জার্নাল

আজ হায়দার জাহান চৌধুরীর ৭০তম জন্মদিন

প্রকাশের সময়:

আজ হায়দার জাহান চৌধুরীর ৭০তম জন্মদিন

আজ বীর মুক্তিযোদ্ধা  আজ হায়দার জাহান চৌধুরীর ৭০তম জন্মদিন।
নাম- হায়দার জাহান চৌধুরী
জন্ম- ৭ জুলাই ১৯৫০
জন্মস্হান,- মসজিদ কোয়ার্টার, নেত্রকোণা
পিতা- খালেকদাদ চৌধুরী
মাতা- বেগম হামিদা চৌধুরী
স্কুল- দত্ত উচ্চ বিদ্যালয়
কলেজ- নেত্রকোণা সরকারি কলেজ।
বিশ্ববিদ্যালয় – ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

বিকাশ- মধু মাছি কচি কাঁচার মেলার সদস্যভূক্তির মাধ্যমে।

খেলোয়াড় – স্কুল জীবন থেকেই একজন চৌকস ফুটবলার হিসেবে আত্মপ্রকাশ। আন্তঃ স্কুল, আন্তঃ কলেজ ও আন্তঃ বিশ্ববিদ্যালয়ে তুখোড় খেলোয়াড় হিসেবে অংশগ্রহণ করেন। তাছাড়া তখন মহকুমা ফুটবলের গন্ডি পেরিয়ে ময়মনসিংহ জেলা ও জাতীয় পর্যায়ে খ্যাতি অর্জন করেন। তিনি ঢাকা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের খেলোয়াড় ছিলেন। তাঁদের বাসার দক্ষিণ ঘরটি ছিল খেলোয়াড় ও সমসাময়িক রাজনৈতিকদের আশ্রয়স্থল।

রাজনৈতিক জীবনের হাতেখড়ি- ৬০ ও ৭০ দশকের ছাত্র রাজনীতির একনিষ্ঠ কর্মী হিসেবে আইয়ুব বিরোধী আন্দোলনে জড়িয়ে পড়েন ও নেতৃত্ব দেন। ৬ দফা ও ১১দফা আন্দোলনে নেতৃত্ব দেন। ৭০ এর নির্বাচনে গৌরবোজ্জ্বল ভুমিকা রাখেন।

মুক্তিযুদ্ধঃ ‘৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে নেত্রকোণা মহকুমা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নেত্রকোণার স্বাধীনতাকামী ছাত্র-যুবকদের সংগঠিত করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন।

১ মার্চ ১৯৭১ সনে মুক্তিযুদ্ধের প্রাক্কালে নেত্রকোণার ছাত্রজনতার মিছিলের নেতৃত্ব দিয়ে পাকিস্তানের পতাকা স্কুল-কলেজ, অফিস-আদালত থেকে নামিয়ে পুড়িয়ে স্বাধীন বাংলার পতাকা উত্তোলন সঞ্চালনের অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন।

স্বাধীন বাংলা ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ গঠন করে নিরস্ত্র আন্দোলনকে সশস্ত্র আন্দলনে রূপদান করেন।

পরবর্তীতে তাদের নেতৃত্বে ছাত্রলীগ ও জয়বাংলা বাহিনী গঠনের মাধ্যমে অন্যান্য নেতৃবৃন্দের ঐকবদ্ধ প্রচেষ্টায় নেত্রকোণা মহকুমা পুলিশের অস্ত্রাগার লুণ্ঠন করে সশস্ত্র মুক্তিবাহিনী গঠন করে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন।

মুক্তিযুদ্ধের সূচনালগ্নে তাদেরই দুঃসাহসিক কর্মকাণ্ডে তার গুরুত্বপূর্ণ অবদান অনস্বীকার্য। বিশেষ করে মুক্ত পাকিস্তানে তাঁর পিতার বন্দুক ব্যবহার করে প্রকাশ্য মোক্তার পাড়া মাঠে অস্ত্র ট্রেনিং দেওয়া দুঃসাহসিক ঘটনা।

যুদ্ধকালীন সময়ে তিনি ছাত্রলীগের নেতা হিসেবে ভারতের দেরাদুন ক্যান্টনমেন্ট থেকে বিশেষ গেরিলা যুদ্ধের প্রশিক্ষণ নিয়ে ১১ নং সেক্টরে বাংলাদেশ লিবারেশন ফোর্স (বিএলএফ) মুজিব বাহিনীর অন্যতম কমান্ডার হিসেবে ময়মনসিংহ, নেত্রকোণা সুনামগঞ্জ এলাকার মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠিত করে দীর্ঘমেয়াদী জনযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন।

মত পরিবর্তন – সদ্য স্বাধীন দেশের স্বাদ গ্রহণের আগেই বিভক্ত রাজনীতির জাসদ অংশে যোগদান। কিছুদিন জেল জলুম ভোগ করে একধরনের রাজনৈতিক নিস্ক্রিয়তা শুরু হয় এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন।

চাকুরির অফারঃ বাংলাদেশের অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম ছিলেন তাঁর বড় ভাই শাহজাহান চৌধুরীর শ্বশুর কুলের নিকটাত্মীয় তাছাড়া ছাত্রলীগ নেতা হিসেবে বাসায় যাতায়াত ছিল। রক্ষীবাহিনী গঠনের সময় হায়দার জাহান চৌধুরীকে যোগদানের জন্য পরিবারকে বলেছিলেন। বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্রের মোহ সে সময় তা ছিল তুচ্ছ। ১৯৭৩ সনে তিনি যখন শিল্প মন্ত্রী হিসেবে নেত্রকোণায় এসেছিলেন। তখন তিনি তাদের বাসায় এসেছিলেন খালেকদাদ চৌধুরীর কাছে চেয়েছিলেন ছেলেকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য। তাঁর পিতা সুসাহিত্যিক খালেকদাদ চৌধুরী ছিলেন আওয়ামী লীগের আমৃত্যু একনিষ্ঠ কর্মী।

চাকুরীঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালীন এম, এ ফাইনালের প্রাক্কালে রেডক্রসের ইউনিট অফিসার হিসেবে কক্সবাজারে কর্মজীবন শুরু করেন। স্বাধীনচেতা এই মানুষটি বন্ধুদের ডাকে সারা দিয়ে ব্যবসার প্রলোভনে চাকুরী ছেড়ে নেত্রকোণায় চলে আসেন। তখন পাটের ব্যবসার রমরমা শেষ অবস্থানকাল। তারা শুরু করেন সোনার তরী ব্যানারে পাটের ব্যবসা। অভিজ্ঞতা না থাকায় সে ব্যবসা বেশীদিন স্থায়ী হয়নি।

নির্বাচনঃ প্রথম উপজেলা নির্বাচনে স্বতন্ত্র অংশগ্রহণ করে দ্বিতীয়।
১৯৮৮ সনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এইচ এম এরশাদ সারাদেশে ২১ জন মুক্তিযোদ্ধাকে নির্বাচনে অংশগ্রহণের সুযোগ করে দেন। সেই নির্বাচনে হায়দার জাহান চৌধুরী অংশগ্রহণ করেন। ফলাফল তার পক্ষেই আসছিল। সব ফলাফল নেত্রকোণায় আসায় আগেই বাংলাদেশ টেলিভিশন ষোষণা করল জাতীয় পার্টির আলী ওসমান সাহেবের বিজয়ের খবর।

আবারও রাজনৈতিক নিস্ক্রিয়তা শুরু ঃ নুরুল আমীন ভাই এমপি হওয়ার পর আবারও মত পরিবর্তন করে বিএনপিতে যোগদান করেন।

দীর্ঘদিন নেত্রকোণা পাবলিক লাইব্রেরি সাধারন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের কমান্ডার ছিলেন।

বর্তমানে রাজনৈতিক ভাবে নিষ্ক্রিয়। ছিলেন এবং এখনও নেত্রকোণার অনেক সামাজিক, সাংস্কৃতিক, খেলাধুলার সাথে সম্পৃক্ত আছেন।

বর্তমান পেশা ঃ সাংবাদিকতা

জেলা প্রেসক্লাবের সদস্য হিসেবে বিভিন্ন সময় কার্যকরী কমিটির সহ সভাপতি ও সদস্য হিসবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এখন কার্যকরী কমিটির সদস্য।

অবসর সময়ে এখন সমাজসেবা ও লেখক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন। পত্রিকা ও বিভিন্ন সংকলনে মুক্তিযুদ্ধের উপর প্রবন্ধ লিখছেন।

তার প্রকাশিত গ্রন্থ – মুক্তিযুদ্ধে মুজিব বাহিনী।

আর অন্যটি বাঁধাইয়ের অপেক্ষায় নেত্রকোণার মুক্তিযুদ্ধ।

আপনার মতামত লিখুন :

 ফেসবুক পেজ

 আজকের নামাজের ওয়াক্ত শুরু

    নেত্রকোণা, ময়মনসিংহ, ঢাকা, বাংলাদেশ
    বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর, ২০২২
    ১০ Rabi' I, ১৪৪৪
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ৪:৩৭ পূর্বাহ্ণ
    সূর্যোদয়ভোর ৫:৫২ পূর্বাহ্ণ
    যোহরদুপুর ১১:৪৭ পূর্বাহ্ণ
    আছরবিকাল ৩:০৯ অপরাহ্ণ
    মাগরিবসন্ধ্যা ৫:৪১ অপরাহ্ণ
    এশা রাত ৬:৫৬ অপরাহ্ণ
নেত্রকোনায় বিশ্ব শিশু ও শিশু অধিকার দিবসে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

নেত্রকোনায় বিশ্ব শিশু ও শিশু অধিকার দিবসে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

নেত্রকোণায় সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় ও সিসি টিভি মনিটরিং উদ্বোধন করেন ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য

নেত্রকোণায় সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় ও সিসি টিভি মনিটরিং উদ্বোধন করেন ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য

কারাবন্দিদের সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

কারাবন্দিদের সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

৭ দফা দাবীতে নেত্রকোণায় সরকারি কর্মচারি দাবি আদায় ঐক্য পরিষদের মানববন্ধন

৭ দফা দাবীতে নেত্রকোণায় সরকারি কর্মচারি দাবি আদায় ঐক্য পরিষদের মানববন্ধন

শেখ হাসিনার সরকার প্রবীণদের কল্যাণে নানামুখী কর্মসূচি নিয়েছে : সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী

শেখ হাসিনার সরকার প্রবীণদের কল্যাণে নানামুখী কর্মসূচি নিয়েছে : সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী

নেত্রকোণার মনোমুগ্ধকর গোবিঞ্চাতুল বিল, যেন পদ্ম ফুলের স্বর্গ রাজ্য

নেত্রকোণার মনোমুগ্ধকর গোবিঞ্চাতুল বিল, যেন পদ্ম ফুলের স্বর্গ রাজ্য

সর্বশেষ সংবাদ সর্বাধিক পঠিত
 
উপদেষ্টা সম্পাদক : দিলওয়ার খান
সম্পাদক ও প্রকাশক : মুহা. জহিরুল ইসলাম অসীম  
অস্থায়ী কার্যালয় : এআরএফবি ভবন, ময়মনসিংহ রোড, সাকুয়া বাজার, নেত্রকোণা সদর, ২৪০০ ।
ফোনঃ ০১৭৩৫ ০৭ ৪৬ ০৪, বিজ্ঞাপনঃ ০১৬৪৫ ৮৮ ৪০ ৫০
ই-মেইল : netrokonajournal@gmail.com
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।