সব
facebook netrokonajournal.com
জিলক্কদ মাসের আমল এবং ঐতিহাসিক তাৎপর্য | নেত্রকোণা জার্নাল

জিলক্কদ মাসের আমল এবং ঐতিহাসিক তাৎপর্য

প্রকাশের সময়:

জিলক্কদ মাসের আমল এবং ঐতিহাসিক তাৎপর্য

ads1

ইসলামিক জার্নাল ডেস্ক:
হিজরি সালের ১১তম মাস জিলকদ। হজের ৩ মাসের দ্বিতীয় মাসও এটি। ইসলামে নিষিদ্ধ যে ৪ মাস রয়েছে তার মধ্যেও একটি এ জিলক্কদ মাস। ইসলামের ইতিহাসে বিভিন্ন কারণে এ মাস অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম জীবনে যে কয়টি ওমরা করেছেন তার সব কটি করেছে এ জিলক্কদ মাসে।
إِنَّ عِدَّةَ الشهُّورِ عِندَ اللَّهِ اثْنَا عَشَرَ شهَرًا فىِ كِتَابِ اللَّهِ يَوْمَ خَلَقَ السَّمَاوَاتِ وَ الْأَرْضَ مِنهْا أَرْبَعَةٌ حُرُمٌ ذَالِكَ الدِّينُ الْقَيِّمُ فَلَا تَظْلِمُواْ

আল্লাহ রাব্বুল আলামীন ইরশাদ করেন, ‘‘নিশ্চয় আল্লাহর বিধান ও গণনায় মাস বারটি আসমানসমূহ ও পৃথিবী সৃষ্টির দিন থেকে। তার মধ্যে চারটি সম্মানিত। এটিই সুপ্রতিষ্ঠিত বিধান। সুতরাং এতে তোমরা নিজেদের প্রতি অত্যাচার করো না। (সূরা তাওবা, আয়াত নং ৩৬)।

সেই পবিত্র চার মাস কোনগুলো? হাদীসে এ ব্যাপারে পরিস্কার করা হয়েছেঃ
عَنْ أَبِي بَكْرَةَ، عَنِ النَّبِيِّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ: ” إِنَّ الزَّمَانَ قَدِ اسْتَدَارَ كَهَيْئَتِهِ يَوْمَ خَلَقَ اللَّهُ السَّمَوَاتِ وَالأَرْضَ، السَّنَةُ اثْنَا عَشَرَ شَهْرًا، مِنْهَا أَرْبَعَةٌ حُرُمٌ، ثَلاَثٌ مُتَوَالِيَاتٌ: ذُو القَعْدَةِ، وَذُو الحِجَّةِ، وَالمُحَرَّمُ، وَرَجَبُ، مُضَرَ الَّذِي بَيْنَ جُمَادَى، وَشَعْبَانَ‎”
হযরত আবু বাকরা রাঃ থেকে বর্ণিত। রাসূল সাঃ ইরশাদ করেছেনঃ আল্লাহ যেদিন আসমান যমীন সৃষ্টি করেন, সেদিন যেভাবে কাল [যমানা] ছিল তা আজও অনুরূপভাবে বিদ্যমান। বারমাসে এক বছর, তন্মধ্যে চার মাস পবিত্র। যার তিন মাস ধারাবাহিক যথা জিলক্কদ, জিলহজ্ব ও মুহাররম ও মুযার গোত্রের রজব,যা জামাদিউস সানী এবং শাবান মাসের মধ্যবর্তী। {সহীহ বুখারী, হাদীস নং-৪৬৬২,৪৩৮৫,সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-১৬৭৯, সুনানে আবু দাউদ, হাদীস নং-১৯৪৭}

জিলহজ্ব মাস সেই সকল মহিমান্বিত মাস সমূহের অন্যতম, যেগুলোকে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন স্বয়ং সম্মানিত বা হারাম মাস বলে আখ্যা দিয়েছেন।

উপরোল্লেখিত আয়াতে সম্মানিত মাসগুলো কি তা নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম হাদীস শরীফে বলে দিয়েছেন। সেগুলো হচ্ছে- যিলক্বদ, যিলহজ্ব, মুহাররম ও রজব।

জাহেলিয়াতের যুগেও মক্কার মুশরিকরা এই মাসগুলোকে সম্মান করতো এবং পরস্পর যুদ্ধ-বিগ্রহ, হানাহানী, ছিনতাই, লুটতরাজ থেকে বিরত থাকতো।

ইবাদতের প্রস্তুতিমূলক বিশ্রাম জিলকদ মাসের প্রকৃত আরবি নাম হলো ‘জুলকাআদাহ’। ফারসিতে ‘জিলকাআদা’; উর্দুতে ‘জিলকাআদ’; বাংলায় ‘জিলক্কদ’ রূপ ধারণ করেছে। ‘জুলকাআদাহ’ বা ‘জিলক্কদ’ অর্থ হলো বসা বা স্থিত হওয়া, বিশ্রাম নেওয়া।

জিলক্কদ মাসের আগের চার মাস (রজব, শাবান, রমজান, শাওয়াল) ধারাবাহিক নির্ধারিত ইবাদতে ব্যস্ততম মাস। যেমন: রজব হলো আল্লাহর মাস, ইবাদতের ভূমি কর্ষণের মাস, বেশি বেশি নফল ইবাদতের মাস।

শাবান হলো রাসুলুল্লাহ (সা.)-এর মাস, ইবাদতের বীজ বপনের মাস; নিসফ শাবান বা শবে বরাত এবং সর্বাধিক নফল রোজা ও নফল ইবাদতের মাস।

রমজান হলো উম্মতের মাস, ফসল তোলার মাস, ফরজ রোজা, তারাবির নামাজ, কিয়ামুল্লাইল; কোরআন নাজিলের মাস এবং ইবাদত–তিলাওয়াতে মশগুল থাকার মাস।

শাওয়াল মাস হলো ঈদুল ফিতর, সদকাতুল ফিতর ও নির্ধারিত সুন্নত ছয় রোজার মাস। অনুরূপ জিলক্কদ মাসের পরের দুই মাস জিলহজ্জ মাস ও মহররম মাস) ইবাদতে ব্যস্ততর মাস।

যেমন: জিলহজ্জ মাস হজ্জ, ঈদুল আজহা ও কোরবানির মাস; মহররম মাস আশুরার মাস। অর্থাৎ জিলক্কদ মাসের আগের চার মাস যেমন ইবাদতে ব্যস্ততায় মশগুল থাকতে হয়, তেমনি জিলক্কদ মাসের পরের দুই মাসও ইবাদতে আকুল থাকতে হবে।

মাঝের একটি মাস জিলক্কদ, যেহেতু মুমিন সামান্য বিশ্রামের ফুরসত পেয়ে থাকেন, তাই এ মাসের নাম জুলকাআদাহ (জিলক্কদ) বা বিশ্রামের মাস। পাপ পরিহারের ঐতিহাসিক মাস। ‘যখনই অবসর পাও দাঁড়িয়ে যাও, তোমার রবের ইবাদতে মশগুল হও।’ (সুরা-৯৪ ইনশিরাহ, আয়াত: ৭-৮)।

সময় মানবজীবনের মূলধন। এই মহামূল্যবান সম্পদ হেলায় নষ্ট করা বুদ্ধিমানের কাজ নয়। আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘শপথ! সময়ের, নিশ্চয় সকল মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত; তবে তারা নয় যারা ইমান আনে, সৎকর্ম করে, সত্যের উপদেশ দেয় ও ধৈর্যের উৎসাহ প্রদান করে।’ (সুরা-১০৩ আসর, আয়াত: ১-৩)।

হাদিসে আছে: তোমরা পাঁচটি জিনিসের পূর্বে পাঁচটি জিনিসকে গুরুত্ব দাও; ব্যস্ততার পূর্বে অবসরকে, অসুস্থতার পূর্বে সুস্থতাকে, দারিদ্র্যের পূর্বে প্রাচুর্যকে, বার্ধক্যের পূর্বে যৌবনকে, মৃত্যুর পূর্বে জীবনকে। (মুসলিম ও তিরমিজি)।

জিলক্বদ মাসের স্মরণীয় ঘটনা:
* এটি যে কোনো যুদ্ধ-বিগ্রহ নিষিদ্ধের মাস।
* ১ জিলকদ : হুদায়বিয়ার সন্ধি সংঘটিত হয়।
* এ মাসেই বাইয়াতে রেদওয়ান অনুষ্ঠিত হয়েছিল।
* ৮ জিলক্কদ : মুসলমানদের জন্য জীবনে একবার হজ্জ পালনকে ফরজ করা হয়েছে।
* ২৫ জিলকদ : হজরত ইবরাহিম আলাইহিস সালাম ও হজরত ঈসা আলাইহিস সালামের জন্ম।
* ২৫ জিলকদ : পবিত্র কাবা শরিফ পৃথিবীতে প্রথম ভিত্তি স্থাপিত হয় বলে জানা যায়।
* ৭ম হিজরির জিলক্কদ মাসে প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম প্রথম ওমরা পালন করেছিলেন।
*এ মাসেই প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর জীবনের সব ওমরাহ পালন করেন।

জিলক্কদ মাসে যাবতীয় অন্যায় ও অনাচার থেকে বিরত থেকে জিলকদ মাসের পবিত্রতা রক্ষা করার তাওফিক দান করুন। জিলকদ মাসের স্বাভাবিক আমল ও ঐতিহাসিক ঘটনাগুলো থেকে শিক্ষা গ্রহণ ও আমল করার তাওফিক দান করুন।
(আমীন)

সংকলন:
মাও: আবু তাহের নেত্রকোনী।
প্রতিষ্ঠাতা, দারুল উলুম ক্বাওমি মাদ্রাসা।
ভূগী (উত্তর পাড়া), পূর্বধলা, নেত্রকোণা।
নিয়মিত লেখক, ইসলামিক জার্নাল বিভাগ,
নেত্রকোণা জার্নাল ডটকম পত্রিকা।
ads1

আপনার মতামত লিখুন :

 ফেসবুক পেজ

 আজকের নামাজের ওয়াক্ত শুরু

    নেত্রকোণা, ময়মনসিংহ, ঢাকা, বাংলাদেশ
    বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২
    ২ Rabi' I, ১৪৪৪
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ৪:৩৪ পূর্বাহ্ণ
    সূর্যোদয়ভোর ৫:৪৯ পূর্বাহ্ণ
    যোহরদুপুর ১১:৪৯ পূর্বাহ্ণ
    আছরবিকাল ৩:১৪ অপরাহ্ণ
    মাগরিবসন্ধ্যা ৫:৪৯ অপরাহ্ণ
    এশা রাত ৭:০৪ অপরাহ্ণ
এর আরও খবর
প্রস্রাব-পায়খানার পর ঢিলা বা টিস্যু ব্যবহারের পরেও পানি খরচ কি খুব জরুরি?

প্রস্রাব-পায়খানার পর ঢিলা বা টিস্যু ব্যবহারের পরেও পানি খরচ কি খুব জরুরি?

মাদকের ভয়াল থাবা: শাস্তি ও প্রতিকারের উপায়

মাদকের ভয়াল থাবা: শাস্তি ও প্রতিকারের উপায়

দুর্গাপুরে আবু তালহা রা: মাদ্রাসায় ২৬ জন শিক্ষার্থীর কোরআন শরীফ ছবকদান

দুর্গাপুরে আবু তালহা রা: মাদ্রাসায় ২৬ জন শিক্ষার্থীর কোরআন শরীফ ছবকদান

কন্যা সন্তান উত্তম : মুফতি আতাউল্লাহ বাশার

কন্যা সন্তান উত্তম : মুফতি আতাউল্লাহ বাশার

আত্মহত্যা থেকে বাঁচার উপায় : মুফতি আতাউল্লাহ বাশার

আত্মহত্যা থেকে বাঁচার উপায় : মুফতি আতাউল্লাহ বাশার

যাদের ওপর কোরবানি ওয়াজিব

যাদের ওপর কোরবানি ওয়াজিব

সর্বশেষ সংবাদ সর্বাধিক পঠিত
 
উপদেষ্টা সম্পাদক : দিলওয়ার খান
সম্পাদক ও প্রকাশক : মুহা. জহিরুল ইসলাম অসীম  
অস্থায়ী কার্যালয় : এআরএফবি ভবন, ময়মনসিংহ রোড, সাকুয়া বাজার, নেত্রকোণা সদর, ২৪০০ ।
ফোনঃ ০১৭৩৫ ০৭ ৪৬ ০৪, বিজ্ঞাপনঃ ০১৬৪৫ ৮৮ ৪০ ৫০
ই-মেইল : netrokonajournal@gmail.com
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।