সব
facebook netrokonajournal.com
শ্রীলংকায় মৃত মুসলিমদের কববের বদলে করা হচ্ছে দাহ | নেত্রকোণা জার্নাল
প্রকাশের সময়:

শ্রীলংকায় মৃত মুসলিমদের কববের বদলে করা হচ্ছে দাহ

শ্রীলংকায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মুসলিম কেউ মারা গেলে তার মৃতদেহ কবরের বদলে দাহ করতে বাধ্য করা হচ্ছে।
দেশটির সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায় বলছে, করোনাভাইরাস মহামারির সুযোগ নিয়ে সেদেশের কর্তৃপক্ষ তাদের বিরুদ্ধে বৈষম্যমূলক আচরণ করছে। খবর বিবিসির।

বিবিসি জানিয়েছে, শ্রীলংকায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মুসলিদের মধ্যে থেকে সরকারিভাবে মাত্র ১১ জনের মৃত্যু রেকর্ড করা হয়েছে। এই ১১ জনের সবার মৃতদেহই কবর না দিয়ে দাহ করা হয়েছে।

শ্রীলংকা সরকারের প্রধান সংক্রামক ব্যাধি বিশেষজ্ঞ ড. সুগত সামারাবীরা বলেছেন, সরকারের নীতি হচ্ছে কোভিড-১৯এ আক্রান্ত বা আক্রান্ত সন্দেহে যারাই মারা যাবে, তাদের মৃতদেহ দাহ করা হবে।
কারণ কবর দেয়া হলে তা ভূগর্ভস্থ সুপেয় পানির স্তরকে দূষিত করতে পারে।

ড. সামারাবীরা বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ক্লিনিক্যাল বিশেষজ্ঞরা সমাজের কল্যাণের জন্য এই নীতি গ্রহণ করেছেন।
কিন্তু মুসলিম অধিকারকর্মী, কমিউনিটি নেতা এবং রাজনীতিবিদরা শ্রীলংকার সরকারকে এ নীতি পুনর্বিবেচনার দাবি জানিয়েছেন।
বিবিসির খবরে বলা হয়, মে মাসের শুরুতে তিন সন্তানের মা ৪৪ বছর বয়স্ক মুসলিম মহিলা ফাতিমা রিনোজাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি করোনা সংক্রমিত হয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছিল।
ফাতিমার স্বামী মোহাম্মদ শফিক জানান, যেদিন তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় সেদিন থেকেই কর্তৃপক্ষ তাদের পরিবারের ওপর ‘চড়াও হয়‌’।

তিনি বলেন, পুলিশ এবং সামরিক বাহিনী কর্মকর্তাদের নিয়ে আমাদের বাড়ির দরজায় এসে হাজির হয়। আমাদেরকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়া হয়, সবখানে জীবাণুনাশক ছিটানো হয়, আমরা সবাই ভয় পেয়েছিলাম কিন্তু তারা আমাদের কিছু বলেনি।
এমনকি তিন মাসের বাচ্চাকেও ভাইরাস টেস্ট করা হয় -তারপর তারা আমাদেরকে কুকুরের মত করে কোয়ারেন্টিন সেন্টারে নিযে যায়।
শফিক জানান, পুরো পরিবারটিকে এক রাত সেখানে আটকে রাখা হয়, কিন্তু পরদিন তাদের ছেড়ে দিয়ে বলা হয়, তাদের দুই সপ্তাহ কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। এর মধ্যেই খবর আসে যে ফাতিমা মারা গেছেন। সে সময় তিনি একাই হাসপাতালে ছিলেন।

ফাতিমার ছেলে জানিয়েছেন, তার মায়ের মৃতদেহ দাহ করার অনুমতিসূচক কাগজপত্রে স্বাক্ষর করতে তাকে বাধ্য করা হয়, যদিও মুসলিম আইনে মৃতদেহ পুড়িয়ে ফেলাকে মানবদেহের অবমাননা বলে মনে করা হয়।

শ্রীলংকার মুসলিম পরিবারগুলো বলছে, বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনায় করোনায় মারা যাওয়া লোকদের কবর দেয়া যাবে বলে বলা হয়েছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও কর্তৃপক্ষ তাদের মৃতদেহ দাহ করতে বাধ্য করছে।
তারা বলছে, দেশটির সংখ্যাগরিষ্ঠ সিংহলী জনগোষ্ঠী যেরকম ধারাবাহিকভাবে হয়রানি এবং ভীতি সৃষ্টি করছে, এটি তার সবশেষ উদাহরণ।

দেশটির সাবেক মন্ত্রী এবং আসন্ন সাধারণ নির্বাচনে একজন প্রার্থী মাওলানা আলি জহির বলেন, মৃতদেহ কবর দেয়াটা যে জনস্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর এর কোনো বৈজ্ঞানিক তথ্যপ্রমাণ থাকলে শ্রীলংকার মুসলিম জনগোষ্ঠী সরকারের সিদ্ধান্ত মেনে নেবে।
শ্রীলংকার মুসলিম কংগ্রেসের উর্ধ্বতন নেতারা তার এ বক্তব্য সমর্থন করেছেন।

তারা বলছেন, এটা স্পষ্ট যে দাহ করার পক্ষে কোনো বৈজ্ঞানিক বা স্বাস্থ্যগত ভিত্তি নেই এবং সরকারের সিদ্ধান্তটি আসলে দেশটিকে জাতিগতভাবে বিভক্ত করার এক সুগভীর এজেন্ডার ভিত্তিতেই নেয়া হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

 ফেসবুক পেজ

 আজকের নামাজের ওয়াক্ত শুরু

    নেত্রকোণা, ময়মনসিংহ, ঢাকা, বাংলাদেশ
    মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২২
    ৪ Jumada I, ১৪৪৪
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ৫:০২ পূর্বাহ্ণ
    সূর্যোদয়ভোর ৬:২২ পূর্বাহ্ণ
    যোহরদুপুর ১১:৪৬ পূর্বাহ্ণ
    আছরবিকাল ২:৫০ অপরাহ্ণ
    মাগরিবসন্ধ্যা ৫:১১ অপরাহ্ণ
    এশা রাত ৬:৩০ অপরাহ্ণ
সুনামগঞ্জের তাহেরপুরের শিমুল বাগান, নৈসর্গিক সৌন্দর্যের আধার

সুনামগঞ্জের তাহেরপুরের শিমুল বাগান, নৈসর্গিক সৌন্দর্যের আধার

প্রতিদিন তো বিএনপির কর্মসূচি দেওয়ার দরকার নেই : কৃষিমন্ত্রী

প্রতিদিন তো বিএনপির কর্মসূচি দেওয়ার দরকার নেই : কৃষিমন্ত্রী

সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় দুই বিএমডিএ কর্মী কারাগারে

সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় দুই বিএমডিএ কর্মী কারাগারে

সীমান্তে মিয়ানমারের ৪ মর্টার শেল নিক্ষেপ, রোহিঙ্গা যুবক নিহত

সীমান্তে মিয়ানমারের ৪ মর্টার শেল নিক্ষেপ, রোহিঙ্গা যুবক নিহত

তাড়াইল থেকে ধর্মপাশায় ভাঙ্গারি ব্যবসা করতে এসে নিখোঁজ কিশোর

তাড়াইল থেকে ধর্মপাশায় ভাঙ্গারি ব্যবসা করতে এসে নিখোঁজ কিশোর

গৌরীপুর আ.লীগের সভাপতি পপি, সম্পাদক সোমনাথ

গৌরীপুর আ.লীগের সভাপতি পপি, সম্পাদক সোমনাথ

সর্বশেষ সংবাদ সর্বাধিক পঠিত
 
উপদেষ্টা সম্পাদক : দিলওয়ার খান
সম্পাদক ও প্রকাশক : মুহা. জহিরুল ইসলাম অসীম  
অস্থায়ী কার্যালয় : এআরএফবি ভবন, ময়মনসিংহ রোড, সাকুয়া বাজার, নেত্রকোণা সদর, ২৪০০ ।
ফোনঃ ০১৭৩৫ ০৭ ৪৬ ০৪, বিজ্ঞাপনঃ ০১৬৪৫ ৮৮ ৪০ ৫০
ই-মেইল : netrokonajournal@gmail.com
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।